ছবি, সাজ্জাদ জহীর

এক রঙে বাস করে হাজারো রঙ
হালকা, গাঢ়, মধ্যম, স্বচ্ছ
আলোকোজ্জ্বল, চকমকে, ঝলমলে
সুরমাই রেশমী নেকাব-ঢাকা
মিশেল দেয়া
রৌদ্রছায়ার কানামাছি খেলা
অনন্য চিত্র হয়ে ওঠে উড়তে থাকা
অথবা এতটা গম্ভীর
যেন কোনো জাহাজের নোঙর
যার ওপর দিয়ে ঢেউ বয়ে যায়
বেদনায় অশান্ত ঝড়ের মত
আর তারপরও
যার ওপর ছেয়ে থাকে
শান্তির ছায়া
কিন্তু তার তলদেশে
পাহাড়ী ঝর্ণার গতি, চঞ্চলতা
অনুসন্ধানের জ্বলন্ত শিখা
আকাঙ্ক্ষার উন্মত্ত সুগন্ধ
থাকে লুকিয়ে
আর যখন অনেক রঙ
তাদের অগণন তরঙ্গ
নানান রকম ছোট বড়
প্রকাশ্য গোপন তরঙ্গ
মুখোমুখি হয়, ধাক্কা খায় একে অপরের সাথে
তখন নতুন বিস্ময়কর ছায়াকৃতি
অসমাপ্ত, পূর্ণ উথলানো বৃত্ত
কল্পিত রেখা
লা-জবাব চেহারা
আর এমন শরীর যা অন্য কোনো কিছুর মত নয়
কিন্তু যে স্বয়ং নিজের স্বতন্ত্র অনুপম অস্তিত্বে
নববধূর মত
নবজাতক শিশুর মত
ভালো লাগে
ঢুকে যায় অস্তিত্বে
টিমটিমে ছোপের এই শিখা
মানবীয় আঙুল,মনন ও আত্মার এই কারিশমা
ভাষার এই অলঙ্কৃত বিস্ফোরণ
জীবনের গায়ে লাগিয়ে দেয় পাখনা
তাকে উড়িয়ে নিয়ে যায় এমন উঁচুতে
যেখান থেকে এই পৃথিবী
আর তার বাসিন্দাদের
আমরা এমনভাবে দেখি
যেমন করে দেখেছিল তাকে মার্শাল টিটো
আর তার সমস্ত গুণ
সকল সৌন্দর্য
তার সব সুগন্ধ
আনন্দিত অলঙ্করণের প্রতিবিম্ব
পতিত হয় আমাদের আত্মার ওপরও
আমরা বদলে যাই
এমনই এক চিত্র
তুমি জানো না
কোন কোন আসমানী রঙে আঁকা
না জানি অপ্সরাদের কেমন ঐন্দ্রজালিক মুদ্রায় পূর্ণ
স্বর্গের কোন মধুর রাগে বাঁধা
আর চুপি চুপি
মনের উষ্ণ তপ্ত আঙিনায় দেয় রেখে
সহসা জেগে ওঠে হাজারো বসন্ত
বর্ষিত হতে থাকে গোলাপি পাপড়ি
সুগন্ধিত হওয়া থেকে
গড়িয়ে পড়ে মৃদু মৃদু শীতল কোমলতা
আর জীবনের শূন্য সিঁথি
ভরে ওঠে সিঁদুরে!

সফিকুন্নবী সামাদী

Collected from, http://www.uthon.com

Please Post Your Comments & Reviews

Your email address will not be published. Required fields are marked *